বুধবার, ২০ অক্টোবর ২০২১, ০১:৩৯ অপরাহ্ন
নোটিশ :
সময়ের চোখ ডট নেট ওয়েবসাইটে আপনাদের স্বাগতম। আমাদের পাশে থাকার জন্য কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি। সময়ের চোখ ডট নেট অনলাইন নিউজ পোর্টালের কর্মরত সকল সাংবাদিকদের ই-মেইলে নিউজ পাঠাতে অনুরোধ করা হলো।
সংবাদ শিরোনাম ::

মুকসুদপুরে অনাবৃষ্টিতে আমের গুটি ঝরে পড়ায় আশঙ্কা

  • আপডেট টাইম : সোমবার, ১৯ এপ্রিল, ২০২১, ১.৫৬ পিএম
  • ৭৪ বার পঠিত

সময়ের চোখ :
গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর উপজেলায় অনাবৃষ্টিতে আমের গুটি ঝরে পড়ায় আশঙ্কায় পড়েছে চাষীরা। দীর্ঘ ৫ মাস ধরে বৃষ্টি না হওয়ায় এবার আমের উৎপাদন লক্ষ্য মাত্রা ব্যাহত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এতে চিন্তিত হয়ে পড়েছেন আম চাষি ও বাগান মালিকেরা। মুকসুদপুর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর সূত্রে জানা গেছে, এ মৌসুমে প্রায় ৯৮ ভাগ গাছেই মুকুল এসেছে। আর উপজেলায় আমবাগান রয়েছে প্রায় ২০০ বিঘা। জানা গেছে, এ উপজেলায় অন্যান্য ফসলের মতো আম ও অর্থকরী ফসল হওয়ায় এ অঞ্চলের মানুষ আম চাষে ঝুঁকছেন। কিন্তু বৈরি আবহাওয়ায় কারনে গুটি ঝরে যাওয়ায় চাষীদের মুখে যেন হাসি নেই। মুকসুদপুর উপজেলার, প্রভাকরদী, মহারাজপুর, টেংরাখোলা, মোচনা ,বনগ্রাম, কদমপুর,কৃষ্ণাদিয়া,পশারগাতী,লখাইরচর সহ বেশ কয়েকটি বাগান ঘুরে দেখা যায়, গাছগুলোতে এখন আমের চেয়ে শুকনা বৈইল বেশি শোভা পাচ্ছে । গাছের আমগুলোর কোনটি আকারে ছোট, আবার কোনটি একটু বড়। বৃষ্টি না হওয়ায় আমের গুটি পুষ্টির অভাবে বড় হচ্ছে না। এতে করে আমচাষিসহ বাগান মালিকদের ভাবিয়ে তুলেছে। উপজেলার আম চাষী ওবায়দুর রহমান জানান, এবছর আমের গুটি ভালোই এসেছে, তবে গত বছরের অক্টোবর মাসের ১ম সপ্তাহ থেকে বৃষ্টি না হওয়ায় ফলন বিপর্যয় দেখা দিতে পারে। অপর আম চাষী মোঃ ফরিদ মিয়া জানান, এবছর পর্যাপ্ত পরিমাণ মুকুল এসেছিল, আর সময়মত গুটি আসায় আশার সঞ্চার জেগেছে। কিন্তু এখন পর্যন্ত বৃষ্টি না হওয়ায় বেশ চিন্তার মধ্যে পড়তে হয়েছে। তবে সামর্থ্য অনুযায়ী আমগাছে স্প্রে এবং গাছের গোড়ায় সেচ দেওয়া হচ্ছে। মুকসুদপুর উদ্ভিদ সংরক্ষন অফিসার মোঃ রুহুল কুদ্দুস জানায় আম ঝরে পড়ার কয়েকটি কারন রয়েছে পুষ্টি,হরমন,আবহাওয়া ,জাতগত বৈশিষ্ট্য কারনে এ জন্য সঠিক সময় সার,সেচ ও স্প্রে করলে সমাধান পাওয়া যাবে। মুকসুদপুর কৃষি অফিসার মোঃ মনিরুজ্জামান জানান, এবার গাছে গাছে ভালো মুকুল আসার পাশাপাশি গুটিও সময়মত এসেছে। এ মুহূর্তে বৃষ্টি হলে ফলন ভালো হবে, না হলে আম উৎপাদন ব্যাহত হতে পারে। খরার কারণে গাছগুলো পানি শুন্য হয়ে পড়ছে, সেহেতু গাছের গোড়া একটু গর্ত করে পানি দিলে গাছগুলো পানি শুন্যতা থেকে রক্ষা পাবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

131d5763789044479a781faf3fa13867
© All rights reserved  2021 ‍SomoyerChokh
Theme Download From ThemesBazar.Com